ইলশে গুঁড়ি! ইলশে গুঁড়ি

ইলিশ মাছের ডিম|

ইলশে গুঁড়ি ইলশে গুঁড়ি

দিনের বেলায় হিম|

কেয়াফুলে ঘুণ লেগেছে,

পড়তে পরাগ মিলিয়ে গেছে,

মেঘের সীমায় রোদ হেসেছে

আলতা-পাটি শিম্|

ইলশে গুঁড়ি হিমের কুঁড়ি,

রোদ্দুরে রিম্ ঝিম্|

হালকা হাওয়ায় মেঘের ছাওয়ায়

ইলশে গুঁড়ির নাচ, –

ইলশে গুঁড়ির নাচন্ দেখে

নাচছে ইলিশ মাছ|

কেউ বা নাচে জলের তলায়

ল্যাজ তুলে কেউ ডিগবাজি খায়,

নদীতে ভাই জাল নিয়ে আয়,

পুকুরে ছিপ গাছ|

উলসে ওঠে মনটা, দেখে

ইলশে গুঁড়ির নাচ|

 

ইলশে গুঁড়ি পরীর ঘুড়ি

কোথায় চলেছে,

ঝমরো চুলে ইলশে গুঁড়ি

মুক্তো ফলেছে!

ধানেক বনে চিংড়িগুলো

লাফিয়ে ওঠে বাড়িয়ে নুলো;

ব্যাঙ ডাকে ওই গলা ফুলো,

আকাশ গলেছে,

বাঁশের পাতায় ঝিমোয় ঝিঁঝিঁ,

বাদল চলেছে|

 

মেঘায় মেঘায় সূর্য্যি ডোবে

জড়িয়ে মেঘের জাল,

ঢাকলো মেঘের খুঞ্চে-পোষে

তাল-পাটালীর থাল|

লিখছে যারা তালপাতাতে

খাগের কলম বাগিয়ে হাতে

তাল বড়া দাও তাদের পাতে

টাটকা ভাজা চাল;

পাতার বাঁশী তৈরী করে’

দিও তাদের কাল|

 

খেজু পাতায় সবুজ টিয়ে

গড়তে পারে কে?

তালের পাতার কানাই ভেঁপু

না হয় তাদের দে|

ইলশে গুঁড়ি – জলের ফাঁকি

ঝরছে কত বলব তা কী?

ভিজতে এল বাবুই পাখী

বাইরে ঘর থেকে; –

পড়তে পাখায় লুকালো জল

ভিজলো নাকো সে|

 

ইলশে গুঁড়ি! ইলশে গুঁড়ি!

পরীর কানের দুল,

ইলশে গুঁড়ি! ইলশে গুঁড়ি!

ঝরো কদম ফুল|

ইলশে গুঁড়ির খুনসুড়িতে

ঝাড়ছে পাখা – টুনটুনিতে

নেবুফুলের কুঞ্জটিতে

দুলছে দোদুল দুল্;

ইলশে গুঁড়ি মেঘের খেয়াল

ঘুম-বাগানের ফুল|

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!